আয়নিকরণ শক্তি কাকে বলে? n ও o এবং p ও s এর মধ্যে কোনটির আয়নিকরণ শক্তি বেশি

p ও s এর মধ্যে কোনটির আয়নিকরণ শক্তি বেশি বের করার পূর্বে আমাদের অবশ্যই আয়নিকরণ শক্তি কাকে বলে জানা থাকতে হবে। n ও o এর মধ্যে কোনটির আয়নিকরণ শক্তি বেশি এবং কেন এ সম্পর্কেও এই পাঠে বিস্তারিত আলোচনা করব।

আয়নিকরণ শক্তি কাকে বলে

এক মোল বিচ্ছিন্ন গ্যাসীয় পরমাণু থেকে একটি করে ইলেকট্রন সরিয়ে একে গ্যাসীয় বিচ্ছিন্ন এক মোল একক ধনাত্মক আয়নে পরিণত করতে যে পরিমাণ শক্তির প্রয়োজন হয় তাকে আয়নিকরণ শক্তি বলা হয়।

p ও s এর মধ্যে কোনটির আয়নিকরণ শক্তি বেশি

পর্যায় সারণীর একই পর্যায়ের বাম দিক থেকে ডান দিকে গেলে আয়নিকরণ বিভব বৃদ্ধি পায়। এ হিসেবে P এর আয়নিকরণ বিভব S এর চেয়ে কম হওয়ার কথা। কিন্তু P এর আয়নিকরণ বিভব S এর চেয়ে বেশি। নিচে ইহা ইলেকট্রন বিন্যাসের আলোকে বিশ্লেষণ করা হলো:

         P(15)→1s22s22p63s23p3

         S(16)→1s22s22p63s23p4

 

ইলেকট্রন বিন্যাস থেকে দেখা যাচ্ছে যে, P এর শেষ স্তরে p অরবিটাল অর্ধ পূর্ণ এবং S এর শেষ স্তরে p অরবিটাল আংশিক ভাবে পূর্ণ আছে। আমরা জানি, আংশিক পূর্ণ অরবিটাল অপেক্ষা অর্ধ পূর্ণ অরবিটাল অধিক স্থিতিশীল। আর অধিক স্থিতিশীল ইলেকট্রন কাঠাম থেকে ইলেকট্রন অপসরণ করতে বেশি শক্তির প্রয়োজন হয়।

একারণে সামগ্রীক ভাবে P এর আয়নিকরণ বিভব S অপেক্ষা বেশি হয়।

p ও s এর মধ্যে কোনটির আয়নিকরণ শক্তি বেশি

সঞ্চারণশীল ইলেকট্রন কাকে বলে ?এর সাহায্যে বেনজিন অণুর গঠন ব্যাখ্যা কর

n ও o এর মধ্যে কোনটির আয়নিকরণ শক্তি বেশি এবং কেন

পর্যায় সারণীর একই পর্যায়ের বাম দিক থেকে ডান দিকে গেলে আয়নিকরণ বিভব বৃদ্ধি পায়। এ হিসেবে N এর আয়নিকরণ বিভব O এর চেয়ে কম হওয়ার কথা। কিন্তু N এর আয়নিকরণ বিভব O এর চেয়ে বেশি। নিচে ইহা ইলেকট্রন বিন্যাসের আলোকে বিশ্লেষণ করা হলো:

         N(7)→1s22s22p3

         O(8)→1s22s22p4

একারণেই সামগ্রীক ভাবে N এর আয়নিকরণ বিভব O অপেক্ষা বেশি হয়।ইলেকট্রন বিন্যাস থেকে দেখা যাচ্ছে যে, N এর শেষ স্তরে p অরবিটাল অর্ধ পূর্ণ এবং O এর শেষ স্তরে p অরবিটাল আংশিক ভাবে পূর্ণ আছে। আমরা জানি, আংশিক পূর্ণ অরবিটাল অপেক্ষা অর্ধ পূর্ণ অরবিটাল অধিক স্থিতিশীল। আর অধিক স্থিতিশীল ইলেকট্রন কাঠাম থেকে ইলেকট্রন অপসরণ করতে বেশি শক্তির প্রয়োজন হয়।

n ও o এর মধ্যে কোনটির আয়নিকরণ শক্তি বেশি এবং কেন

zn রঙিন যৌগ গঠন করে না কেন চিত্রসহ ব্যাখ্যা কর?

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top