ধাতব বন্ধন কাকে বলে? ধাতব বন্ধনের বৈশিষ্ট্য চিত্রসহ ব্যাখ্যা কর?

ধাতব বন্ধনের বৈশিষ্ট্য চিত্রসহ ব্যাখ্যা করতে হলে আমাদের ধাতব বন্ধন কাকে বলে সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করতে হবে। তাছাড়া ধাতব বন্ধনের বৈশিষ্ট্য ভালোভাবে বোঝা সম্ভব নয়। তাই সর্বপ্রথম ধাতব বন্ধন সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব।

 

ধাতব বন্ধন কাকে বলে

কঠিন ধাতব স্ফটিকে ধাতব পরমাণু সমূহ পরস্পরের সাথে যে নিবিড় বন্ধনে আবদ্ধ থাকে তাকে ধাতব বন্ধন বলে।

 

ধাতব বন্ধনের বৈশিষ্ট্য

ধাতুর বিশেষ কিছু বৈশিষ্ট্য আছে। ধাতব স্ফটিকে প্রতিটি ধাতব পরমাণু অপর ৮,১২ বা ১৪টি ধাতব পরমাণুর সঙ্গে যুক্ত থাকে অথচ ধাতুর যোজনী স্তরে ইলেকট্রন সংখ্যা খুবই কম। তাই ধাতুর বৈশিষ্ট্য গুলি এবং ধাতব স্ফটিকে ধাতব পরমাণু সমূহের যে বন্ধন বিদ্যমান তা আয়নিক, সমযোজী এবং সন্নিবেশ বন্ধনের মাধ্যমে ব্যাখ্যা করা সম্ভব নয়।

ধাতব বন্ধনের প্রকৃতি ব্যাখ্যা করার জন্য বিজ্ঞানী ড্রড এবং লরেঞ্জ একটি সহজ তত্ত্ব উদ্ভাবন করেন। ইহা ইলেকট্রন মেঘ বা ইলেকট্রন গ্যাস বা ইলেকট্রন সমুদ্র তত্ত্ব নামে পরিচিত। এই তত্ত্ব অনুসারে ধাতব স্ফটিকে উপস্থিত সবগুলি ধাতব পরমাণু তাদের যোজনী স্তরের ইলেকট্রন গুলো ছেড়ে দিয়ে ধনাত্মক আয়ন সৃষ্টি করে এবং মুক্ত ইলেকট্রন গুলো একত্রে একটি ইলেকট্রন মেঘ বা ইলেকট্রন সমুদ্র সৃষ্টি করে যার মধ্যে ধনাত্মক আয়ন সমূহ নিমিজ্জিত থাকে। ইলেকট্রন গুলো কোন নির্দিষ্ট ধাতব আয়নের একক প্রভাবে থাকে না বরং সবগুলি ইলেকট্রন একত্রে সবগুলি ধাতব আয়নের প্রভাবাধীন থাকে। ধনাত্মক ধাতব আয়ন গুলোকে একত্রে সংযুক্ত করার ক্ষেত্রে মুক্ত ইলেকট্রন গুলো সিমেন্টের ভূমিকা পালন করে।

ধাতব বন্ধন কাকে বলে

 

সুতরাং ধাতব আয়ন এবং তার চারিদিকে বিচরণে সক্ষম ইলেকট্রন গুলির মধ্যে আকর্ষণের ফলে যে বন্ধন, ধাতব পরমাণু সমূহকে নিবিড় ভাবে আবদ্ধ রাখে তাহাকে ধাতব বন্ধন বলে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top