সমযোজী বন্ধন কাকে বলে? সমযোজী বন্ধন কিভাবে গঠিত হয় ব্যাখ্যা কর

সমযোজী বন্ধন কিভাবে গঠিত হয় জানতে হলে আমাদের অবশ্যই সমযোজী বন্ধন কাকে বলে তা জানতে হবে। তাই আমরা সর্বপ্রথম সমযোজী বন্ধন কাকে বলে জানব তার পর সমযোজী বন্ধন কিভাবে গঠিত হয় তা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব।

সমযোজী বন্ধন কাকে বলে

সমযোজী বন্ধন কাকে বলে

অধাতব পরমানু গুলো ইলেকট্রন শেয়ারের মাধ্যমে যে বন্ধন তৈরি করে তাকে সমযোজী বন্ধন বলা হয়।

অথবা,

রাসায়নিক সংযোগে অংশগ্রহণ কারী পরমাণু সমূহ প্রত্যেকে সম সংখ্যক ইলেকট্রন প্রদান করে যে ইলেকট্রন যুগল উৎপন্ন করে, উক্ত ইলেকট্রন যুগল উভয় পরমাণুই সমান ভাবে শেয়ার করে নিস্ক্রিয় গ্যাসের মত ইলেকট্রন বিন্যাস অর্জনের মাধ্যমে যে রাসায়নিক বন্ধন সৃষ্টি করে তাকে সমযোজী বন্ধা বলে।

উদাহরণ ও ব্যাখ্যা:  দুটি ক্লোরিন পরমাণুর সংযোগে ক্লোরিন অনু গঠন: ক্লোরিন পরমাণুতে ১৭টি ইলেকট্রন আছে। তার ইলেকট্রন বিন্যাস নিম্নরুপঃ

Cl(17) → 1s2 2s2 2p6 3s2 3px2 3py2 3pz1

ক্লোরিনের ইলেকট্রন বিন্যাস হতে সুস্পষ্ট যে, ক্লোরিনের সর্ববহিঃস্থ ৩য় শক্তি স্তরে ৭টি ইলেকট্রন আছে। ২টি ক্লোরিন পরমাণুর প্রত্যেকেই একটি করে ইলেকট্রন দান করে ইলেকট্রন যুগল সৃষ্টির মাধ্যমে নিষ্ক্রিয় গ্যাস আর্গনের মত ইলেকট্রন গঠন লাভ করে এবং সমযোজী বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে ক্লোরিন অণু গঠন করে। নিম্নে তা ইলেকট্রন গঠনের মাধ্যমে দেখানো হল।

সমযোজী বন্ধন কিভাবে গঠিত হয়

 

HCl, H2 ও H2O এর সমযোজী বন্ধন চিত্র ব্যাখ্যা কর?

সমযোজী বন্ধন কিভাবে গঠিত হয় ব্যাখ্যা

অণু গঠকালে দুটি পরমাণু নিজ নিজ যোজ্যতান্তয়ের বিপরীত স্পিনযুক্ত বিজোড় ইলেকট্রন জোড়ায় জোড়ায় শেয়ার করে তাদের মধ্যে সমযোজী বন্ধন গঠন করে।

যেমন- দুটি হাইড্রোজেন পরমাণু বহিস্তরের বিজোড় 1s1 ইলেকট্রন শেয়ার করে নিজেদের মধ্যে সমযোজী বন্ধন গঠন করে। ফলে H2 অণু সৃষ্টি হয়।

H(1) → 1s1

Hº +Hx → H ox H → H—H

যোজ্যতা বন্ধন মতবাদ অনুসারে, এ ইলেকট্রন-যুগল সৃষ্টির জন্য শেয়ারকৃত ইলেকট্রন যে অরবিটাল থাকে তারা পরস্পর উপরিস্থাপন বা অধিক্রমণ করে যাতে দুটি নিউক্লিয়াসের মাঝে ইলেকট্রনের সাধারণ ঘনত্ব বিশিষ্ট একটি ক্ষেত্র উৎপন্ন হয়। একে আণবিক অরবিটাল বলে।
অণু গঠনের সময় পারমাণবিক অরবিটালদ্বয়ের এ অধিক্রমণ দু’ভাবে ঘটতে পারে। সে অনুসারে দু’ধরনের সমযোজী বন্ধন গঠিত হয়। যথা-

  1. সিগমা বন্ধন (σ বন্ধন)
  2. পাই বন্ধন ( π বন্ধন)।

সিগমা ও পাই বন্ধন কাকে বলে উদাহরণ সহ ব্যাখ্যা কর?

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top